সার্বিয়ান মডেল ও অভিনেত্রী মিনা পে’টকোভিচ বসকান। জটিলতা কা’টিয়ে ‘হৃদয়ের রংধনু’র মধ্য দিয়ে বাংলাদেশী ছবিতে অভিষেক হয়েছে তার। শুক্রবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সিনেমাটি মু’ক্তি পেয়েছে রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে। ছবিটি পরিচালনা ক’রেছেন রাজিবুল হোসেন।

মিনার ক্যারিয়ারের শুরুটা হয়েছিল সার্বিয়াতে ছোট বোনের সাথে মডেলিং দিয়ে। এরপর ইতালি, চায়না, থাইল্যান্ড ও ভারতে মডেলিং করেন তিনি। এরপর বাংলাদেশি ছবিতে অভিনয় করেন। এছাড়া বাংলাদেশের সিনেমাটি শেষ হওয়ার পর ভারতের একটি সিনেমাতেও অভিনয় ক’রেছেন তিনি। সার্বিয়ান নির্মাতা সারার পরিচালনায় সিনেমাটির নাম ‘ইঙ্কব্লট’।

‘হৃদয়ের রংধনু’ সিনেমাটি নিয়ে মিনা পেতকোভিচ বলেন, শেষ পর্যন্ত সিনেমাটি মু’ক্তি পেয়েছে; এজন্য আমি অনেক আনন্দিত। আমা’র মনে হয়েছে এখানকার দর্শকরা খুব আবেগপ্রবণ ও তাদের মনে জটিলতা কম। সিনেমাটিতে বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে তুলে ধ’রা হয়েছে। যার কারণে সবাই খুব সহজে সিনেমাটি গ্রহণ করছেন এবং হলে গিয়ে দেখছেন। তাছাড়া আমাকে অনেকে ফেসবুকে অভিনন্দন জা’নিয়েছেন। আমি খুব খুশি।
এই দেশে অভিনয় ক’রতে এসে শিখে ফে’লে ছেন বাংলা। এখন তার প্রিয় ভাষার মধ্যে বাংলা একটি। এ প্রস’ঙ্গে অভিনেত্রী মিনা পেতকোভিচ বলেন, বাংলাদেশে এটা আমা’র প্রথম কাজ। ছবির শু’টিংয়ের প্রয়োজনে আমাকে বাংলা শিখতে হয়েছে। আমি ইংরেজিতেও কথা বলতে পারি। কিন্তু ইংরেজির চেয়েও বাংলা ভাষা অনেক বেশি ভালো লাগে আমা’র। বাংলা বলা মানুষদেরও আমা’র অনেক ভালো লাগে। আমা’র ইচ্ছে আছে সারাজীবন বাংলাদেশে থাকবো আর বাংলাদেশের কোনো ছেলেকেই একদিন বিয়ে করবো।