রমজান মাস আ'সলেই ছোলার চাহি’দা বেড়ে যায়। রমজান মাসে ছোলা সিদ্ধ করে খাওয়া তা নিয়ে স’মস্যা নয়। স’মস্যা হল স্বা’স্থ্যের জন্য ছোলা অনেকেই সকালে খালি পে’টে কাঁচা খেয়ে থাকেন। তবে এই কাঁচা ছোলার স’ঙ্গে আর কী খাওয়া ঠিক কিংবা ঠিক না সে বিষয়টি অনেকেই মাথায় রাখেন না। অথচ এই বিষয়টি খেয়াল রাখা খুব জ’রুরি। কারণ সঠিক তথ্য না জা’নার জন্য অনেক সময় হিতে বিপরীত ফলাফল ভোগ ক’রতে হতে পারে।

দেখা যাবে ভালো ক’রতে গিয়ে আপনার শ’রীরের জন্য তা বি’পদ ডেকে আনতে পারে। তাই সঠিক তথ্য জা’নাটা আপনার শ’রীরের জন্য খুবই জ’রুরি। অনেকেই হিমোগ্লোবিন বৃ’দ্ধি ও খাদ্য পরিপাকের কথা মাথায় রেখে রাতেই ছোলা ভিজিয়ে দেন ও পরের দিন সকালে সেগুলো খান। কাঁচা ছোলা খাওয়া শ’রীরের জন্য খুবই ভালো, তা যেমন আপনার শ’রীরের র’ক্তের পরিমাণ বৃ’দ্ধি করে, তেমনি আপনাকে ফিটও রাখে। তবে প্রায় সময়ই দেখা যায় ছোলা খাওয়ার কিছুক্ষণ পরই অন্যান্য খাবার খান অনেকেই। যা বি’পদ বয়ে আনতে পারে।

বিশেষ করে এই সময় আপনি যদি দুটি জিনিস খান, তাহলে আপনার শ’রীরে অসুখের প্র’বণতা বৃ’দ্ধি পেতে পারে। আ'সলে কাঁচা ছোলা খাওয়ার পর এই দুটি জিনিস শ’রীরে গেলে তা আপনার শ’রীরের জন্য বিষক্রিয়ার সৃষ্টি ক’রতে পারে। তাতে করে শ’রীরে বিভিন্ন রকম রো’গ দানা বাঁধতে পারে। তাই সকালে ছোলা খাওয়ার পর দুটি জিনিস ভুলেও খাবেন না। চলুন জে’নে নেয়া যাক সেই দুটি জিনিস স’স্পর্কে-

> সকালে খালি পে’টে কাঁচা ছোলা খাওয়ার পর ভুলেও কোনো রকম আচার খাবেন না। আ'সলে আচারের মধ্যে অনেক সময় ভিনেগার দেয়া হয়, কাঁচা ছোলা খাওয়ার পর যদি আপনার পে’টে ভিনেগার যায় তাহলে তা বিষক্রিয়া ক’রতে পারে। এতে করে কাঁচা ছোলা ও আচার একই স’ঙ্গে আপনার পে’টে গেলে তা উপকারের বদলে অপকার করবে এবং আপনার হার্ট অ্যাটাক পর্যন্ত হতে পারে। সেই স’ঙ্গে সহ্য ক’রতে হবে গলা-বুক জ্বা’লা ও অম্বলের স’মস্যা।

> সকালে খালি পে’টে কাঁচা ছোলা খাওয়ার পর কখনোই করলা খাবেন না। কারণ কাঁচা ছোলাতে যে অক্সাইড পাওয়া যায়, সেই অক্সাইড আপনি পাবেন করলাতে। বরং কাঁচা ছোলাতে যে পরিমাণ অক্সাইড পাওয়া যায় করলাতে তার চেয়ে অনেক বেশি মাত্রায় অক্সাইড থাকে। তাতে করে শ’রীরের মধ্যে তা প্রবেশ করার পর তা মিলেমিশে বিষক্রিয়ার সৃষ্টি করে। তবে এই বিষক্রিয়া খুবই ধীরে ধীরে কাজ করে ও পরে তা গ’ভীর অসুখের সৃষ্টি ক’রতে পারে।