করো'না ভা'ইরাসের কারণে উদ্ভূত সংক’টময় প’রিস্থিতি মো'কাবিলায় দারুণ এক উদ্যো'গ নিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা। বোর্ডের কে’ন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ১৭ জন এবং সাম্প্রতিক সময়ে জাতীয় দলে খেলা আরও ১০ জন- মোট ২৭ ক্রিকেটার তাদের এক মাসের বেতনের অর্ধেক টাকা দান করে দিয়েছেন করো'না মো'কাবিলার জন্য।

এ ২৭ ক্রিকেটারের এক মাসের বেতন সর্বমোট ৬০ লাখ ৩০ হাজার টাকা। সবাই নিজেদের অর্ধেক করে দান করে দেয়ার পর আসে ৩০ লাখ ১৫ হাজার টাকা। এর থেকে আয়কর কে’টে নেয়ার পর প্রায় ২৬ লাখ টানা থাকছে করো'না ইস্যুতে ব্যবহার করার জন্য।

জা’না গেছে, মহৎ এ কাজে'র প্রস্তাবটা প্রথম দিয়েছেন জাতীয় দলের বর্তমান ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সংবাদমাধ্যমে এ খবর ছ’ড়িয়ে পড়ার পর তামিম নিজেও আনুষ্ঠানিকভাবে জা’নিয়েছেন দান করার কথা। একইস’ঙ্গে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে আ'হ্বান জা’নিয়েছেন নিজে ভালো থেকে দেশকে ভালো রাখার জন্য।

নিজে'র ফেসবুক পেজে তামিম লি’খেছেন, ‘করো'না ভা'ইরাসের ছোবলে গোটা বিশ্বই আজ বিপর্যস্ত। বাংলাদেশেও প্রকোপ বেড়ে চলেছে। আম’রা ক্রিকেটাররাও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানাভাবে চেষ্টা করছি সবাইকে সত’র্ক ও সচে’তন করার। তবে আম’রা মনে করছি, শুধু সচে’তন করাই যথেষ্ট নয়, এই দুর্যোগের সময় আমাদের আরও কিছু করার আছে।

বিসিবির কে’ন্দ্রীয় চুক্তিতে যে ১৭ জন ক্রিকেটারকে রাখা হয়েছে এবং জিম্বাবুয়ে সিরিজসহ স’ম্প্রতি জাতীয় দলে খেলেছে, এমন আরও ১০ জন- সবমিলিয়ে ২৭ ক্রিকেটারের এক মাসের বেতনের ৫০ শতাংশ দিয়ে আম’রা সহায়তা করছি। কর কে’টে রাখার পর মোট থাকবে ২৫ লাখ টাকার কিছু বেশি।

করো'না ভা'ইরাসের বি'রুদ্ধে লড়াই যতটা ব্যা’পক, এই অর্থ হয়তো খুব বড় অঙ্ক নয়। তবে বিন্দু বিন্দু জল মিলেই হয়ে ওঠে মহাসাগর। আম’রা সবাই যদি নিজেদের জায়গা থেকে চেষ্টা করি, যত ছোট অবদানই হোক, সবাই মিলে সেটিই বড় হয়ে উঠবে।

চারপাশের সবার স’মালোচনায় মেতে না থেকে, যদি নিজে'রা দায়িত্ব নেই ও নিজেদের সাধ্যমতো অবদান রাখি, তাহলেই করো'না ভা'ইরাসের বি'রুদ্ধে এই লড়াইয়ে আমাদের জয় সম্ভব। সবাই ঘরে থাকুন, নি’রাপদ থাকুন। নিজে ভালো থাকুন, দেশকে ভালো রাখু’ন।’