গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় স্ত্রীকে তা’লাকের পর দুধ দিয়ে গোসল ক’রেছেন এক যুবক। দ্বিতীয় স্ত্রীকে তা’লাক দেয়ায় তাকে দুধ দিয়ে গোসল ক’রিয়ে বরণ করে নি’য়েছেন প্রথম স্ত্রী।

এ সময় প্রথম স্ত্রীর স’ঙ্গে এলাকাবাসী রাতভর ঢা’কঢোল পি’টিয়ে আ’নন্দ-উ’ল্লাসে মেতে ও’ঠে। গানবাজনা ও আ’নন্দ-উ’ল্লাসের সঙ্গে ওই গ্রামে রাতভর চলে খিচুড়ি উৎসব। রোববার (১৯ জানুয়ারি) রাতে উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সিংগারদিঘি গ্রামে এ ঘ’টনা ঘ’টে।

স্থা’নীয়রা জা’নায়, সিংগারদিঘী গ্রামের মৃ ত কাজিমুদ্দিনের ছেলে আজিজুল হক (৩৭) ২০০১ সালে একই ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সলিং মোড় এলাকার আব্দুল মজিদের মেয়ে তাজ নাহারকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর সুখে-শা’ন্তিতে চ’লছিল তাদের সংসার। তাদের ঘর আ’লোকিত করে আসে দুই সন্তান।

২০১৩ সালে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ম’নোমালিন্য হলে স’ম্পর্কের অ’বনতি ঘ’টে। এরই মধ্যে গ্রামের অন্য এক নারীকে বিয়ে করেন আজিজুল। দ্বিতীয় বিয়ের পর থেকে আজিজুলের সংসারে অশা’ন্তি শুরু হয়। সংসারে শা’ন্তি ফি’রিয়ে আ’নতে আজিজুল নিজেই আ’ইনিভাবে দ্বিতীয় স্ত্রীকে তা’লাক দেন।

এতে খুশি হয় স্থা’নীয়রা। তারা নিজেদের উদ্যো’গে অনু’ষ্ঠানের আয়োজন করেন। অ’নুষ্ঠানে কয়েক গ্রামের মানুষকে খিচুড়ি খাওয়ানো হয়। পাশাপাশি প্রথম স্ত্রী তাজ নাহার স্বামী আজিজুলকে দুধ দিয়ে গোসল ক’রিয়ে ব’রণ করে নেন।

এ বিষয়ে আজিজুল হক বলেন, আমি দুই বিয়ে ক’রেছিলাম। এতে সংসারে অশা’ন্তি শুরু হয়। সংসারে শা’ন্তি ফেরাতে ছোট স্ত্রীকে তালাক দি’য়েছি। আমি ভালো হয়ে গে’ছি। জীবনে আর বিয়ে করব না। আল্লাহ আমাকে ক্ষ’মা করুক। পাশাপাশি জীবনে কেউ যেন দুই বিয়ে না করে তার অ’নুরোধ রইল।

তিনি আরও বলেন, আগের ভুল থেকে প’রিশুদ্ধ হয়ে আবারও নতুন করে জীবন শু’রু করতে এই অ’নুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। গ্রামের মানুষকে খিচুড়ি খাওয়া হ’য়েছে। পাশাপাশি প্রথম স্ত্রী দুধ দিয়ে গোসল ক’রিয়ে আমাকে ব’রণ ক’রেছেন।