গায়ক নোবেলের বি’রুদ্ধে প্রেম ও সর্বস্ব লু’টের অ’ভিযোগ এনেছে ১৬ বছর বয়সী এক ছাত্রী। ওই ছাত্রী জা’নিয়েছে, গোপালগঞ্জে থাকার সময় থেকে নোবেলের স’ঙ্গে তার প্রেমের স’ম্পর্ক গড়ে উঠে। এমনকি বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নোবেল তার শারী’রিক স’ম্পর্কেও মি’লিত হয় বলে অ’ভিযোগ কিশোরীর।

স’ম্প্রতি একের পর এক বিত’র্কে জ’ড়িয়ে বারবার উঠে আ’সছে নোবেলের নাম। এবার অ’ভিযোগ উঠেছে, কিশোরী প্রেমিকার স’ঙ্গে প্র’তারণা ক’রেছেন নোবেল।

শাহরিন সুলতানার নামের ওই কিশোরীর অ’ভিযোগ, নোবেল মা’দক আর নারীর নে’শায় আস’ক্ত। প্রেমের নামে মেয়েদের স’ঙ্গে অবৈ’ধ স’ম্পর্ক ও প্র’তারণার আ’শ্রয় নিয়ে থাকেন। এছাড়াও মা’দকাস’ক্ততার কারণে নোবেল দুবার রিহ্যাবেও ভর্তি ছিলেন বলে জা’নান তিনি।

ওই নারীর এসব অ’ভিযোগ গু’রুত্ব দিয়ে প্র’কাশ ক’রেছেন ভারতের বেশ কিছু সংবাদমাধ্যম। তবে শাহরিন সুলতানার নামের ওই কিশোরীর বি’স্তারিত পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি। এমনকি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের যে অ্যাকাউন্ট থেকে ছবি ও অ’ভিযোগ করা হয়, তাও ডিএক্টিভেট দেখাচ্ছে। তারপরও ওই কিশোরীর অ’ভিযোগ ও নোবেলের আপ’ত্তিকর ছবিগুলো এখন ফেসবুকে ভাইরাল।

শাহরিন সুলতানার অ’ভিযোগ প্রস’ঙ্গে একটি গণমাধ্যমকে নোবেল বলেন, ‘আজকাল ছবি এডিট করা যায়। যে ছবিগুলো প্র’কাশ করা হয়েছে, তা এডিট করা। যে মেয়ে অ’ভিযোগ ক’রেছেন, তার কোনো হদিস নেই। আমা’র ভাবমূর্তি ন’ষ্ট ক’রতে এসব মি’থ্যে অ’ভিযোগ ছা’ড়ানো হচ্ছে, এর বেশি আর কিছুই না।’

তিনি আরও বলেন, ‘এলাকার লোকজন, পরিচিত মহল ও ব'ন্ধুবান্ধব সবাই জা’নেন, আমি কেমন? এসব অ’ভিযোগ ভি’ত্তিহীন ও আমা’র সুনাম ন’ষ্ট’ করার জন্য।’