চাঁপাইনবাবগঞ্জে'র শিবগঞ্জে অটোরিক্সা ছিনতাইয়ের অ’ভিযোগে শিবগঞ্জ উপজে’লা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মো. নবীনূর রহমানকে গণধোলাই দিয়েছে এলাকাবাসী। এছাড়া এঘ’টনার সাথে জড়িত আরো ২জন পলাতক রয়েছে।

শুক্রবার সকালে শিবগঞ্জ উপজে’লার চককীর্ত্তি ইউনিয়নের কৃষ্ণচন্দ্রপুর বাজার এঘ’টনা ঘ’টে। উপজে’লা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মো. নবীনূর রহমান চককীর্ত্তি ইউনিয়নের কৃষ্ণচন্দ্রপুর গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে। পলাতক ২জন নাধড়া গ্রামের শাহজাহান আলীর ছেলে মো. শাহাদাৎ আলী ও পীরাটন টোকনা গ্রামের কালামের ছেলে সারওয়ার।

স্থা’নীয়রা জা’নায়, শুক্রবার ভোর রাতে রাণীনগর তেরিচক গ্রাম থেকে ছে'ড়ে আসা একটি অটোরিক্সা কৃষ্ণচন্দ্রপুর বাজারের পৌছালে অটো চালককে নবীনূর রহমান ও তার আরো ২ সঙ্গী কুমিল্লার এস.পি সৈয়দ নূরুল ইসলামের নাম করে ভ’য় দেখিয়ে তার অটোরিক্সা ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে এবং অটোচালকের মোবাইল ফোন ছিনতাই করে পাঠিয়ে যায়।

ছিনতাইকালে অটো চালক চিৎকারে আম’রা এগিয়ে আসি। আম’রা পৌছানোর আগেই সে এবং তার সহযোগিরা পালিয়ে যায়। পরে সকাল হওয়ার সাথে সাথে তাকে আ'টক করা হয়। আ'টকের পর স্থা’নীয় আওয়ামীলীগ ও অটোরিক্সা সমিতির নেতাদের সংবাদ দেয়া হয়। পরে তাদের উপ’স্থিতিতে গামছা দিয়ে হাত বেঁধে তাকে ধোলাই দেয়া হয়।

এদিকে, ধাইনগর ইউনিয়নের রাণীনগর তেরিচক গ্রামের অটোরিক্সা চালক মৃ'ত মংলুর মন্ডলের ছেলে বিপ্লব আলী জা’নান, আম’রা জ’রুরি কাজে'র জন্য নাচোলের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে অটোরিক্সা নিয়ে ভোর রাত আনুমানিক ৩টার দিকে বের হই।

অটোরিক্সা নিয়ে কৃষ্ণচন্দ্রপুর বাজারে পৌছালে নবীনূর রহমান ও তার আরো ২ সঙ্গী ছাত্রলীগের পরিচয় ও নূরুল এসপি নাম বলে আমাকে ভ’য় দেখিয়ে শিবগঞ্জ নিয়ে যেতে যায়। আমি যেতে রাজি না হওয়ায় আমা’র অটোরিক্সা ছিনতাইয়ের কথা বলে। কিন্তু অটোরিক্সা ছিনতাই ক’রতে না পারায়, তারা আমা’র মোবাইল ছিনতাই করে পালিয়ে যায়। পরে আমা’র আত্মীয় ও অটো সমিতির সভাপতি সংবাদ দিই।

এদিকে, স্থা’নীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ও অটো সমিতির নেতারা বিষয়টি মিমাংসা করে দেয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, শিবগঞ্জ উপজে’লা অটো সমিতি সহ-সভাপতি মো. সৈবুর রহমান, চককীত্তি ইউনিয়ন আওয়ামীলগের সহ-সভাপতি আশরাফুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ইউসুফ আলী, আওয়ামীলীগ নেতা আবুল কালাম আজাদসহ গণ্যমান্য ব্য’ক্তিবর্গ।